গুগুল এডসেন্স পাওয়ার গাইড লাইন এবং এডসেন্স থেকে আয়ের উপায়

গুগুল এডসেন্স গুগুলের একটি প্রডাক্ট।অনেকে বলেন গুগুল এডসেন্স হলো সোনার হরিণ। একে পাওয়া বড় কঠিন।দুনিয়াতে অসাধ্য কিছুই নেই আপনিও চেষ্টা করলে পারবেন।কোন কিছু পেতে হলে কিছু কষ্ট করতে হয়।সঠিক ভাবে চেষ্টা করলে অবশ্যই আপনি পারবেন। বর্তমানে ব্লগারদের জন্য একটি সহজ মাধ্যম হলো বাংলায় ব্লগ সাইট তৈরি করা।আগে গুগুল এডসেন্স বাংলা লেখা সাপোর্ট করতো না। বর্তমানে বাংলা লেখা সাপোর্ট করে। অর্থাৎ বাংলায় ব্লগ সাইট তৈরি করে গুগুল এডসেন্সে এপপ্রোভ করতে পারবেন।


Google Adsense
Google Adsense


গুগুল এডসেন্স কি :

গুগুল এডসেন্স হচ্ছে গুগুলের এমন একটি মাধ্যম যার মাধ্যমে এডভেরটাইজ করা হয় বা বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয়।এটি একটি সহজ সিকিউর বা নিরাপদ মাধ্যম। অনলাইনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা হাজারো আ্যাড নেটওয়ার্কের মধ্যে গুগুল এডসেন্স হচ্ছে সাবার সেরা মাধ্যম।একটু সহজ ভাবে বলি আপনি নিশ্চয় বিভিন্ন ব্লগ বা ওয়েবসাইটে বা ইউটিউব ভিডিও গুলিতে বিজ্ঞাপন প্রচার করতে দেখেছেন। এই বিজ্ঞাপন গুলো মূলত: গুগুল এডসেন্সের মাধ্যমে দেওয়া হয়। যখন কোন ব্লগ, ওয়েবসাইট ব ইউটিউব চ্যানেলে কোন ভিজিটর আসে এবং বিজ্ঞাপন গুলোতে ক্লিক করে তখন একটি নির্দিষ্ট পরিমান টাকা ব্লগ, বা ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যনেলের মালিককে  দেওয়া হয়।গুগুল এডসেন্স পাবলিসার থেকে পাওয়া টাকা থেকে ৩২% কেটে রেখে বাকি টাকা অর্থাৎ ৬৮% টাকা ব্লগ বা ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেলের মালিককে দিয়ে দেয়।যখন আপনার একাউন্টে ১০০ ডলার জমা হবে, তখন আপনি ্আপনার টাকা তুলতে পারবেন।

গুগুল এডসেন্স পেতে হলে কি কি প্রয়োজন :

গুগুল এডসেন্স পেতে হলে প্র্রথমে প্রয়োজন একটি ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল। এর যে কোন একটি থাকতে হবে।আপনি ‍যদি ওয়েব ডিজাইনের কাজ জেনে থাকেন তো ভাল কথা। আর যদি জানা না থাকে তবে অন্য কাউকে দিয়ে একটি ব্লগসাইট বা ্ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে নিতে পারেন।ব্লগ সাইট বা ওয়েবসাইট তৈরির পর ডোমেন ও হোস্টেং সেটাপ করতে হবে।এখন ইউনিক আর্টিকেল লেখা শুরু করতে হবে।তারপর ব্লগ বা ওয়েবসাইটের স্পিড বাড়াতে হবে।আপনার সাইট বা আর্টিকেলকে S E O ফ্রেন্ডলি করতে হবে।মানুষের কাজে আসে এমন আর্টিকেল লিখতে হবে।মনে রাখবেন কখনও কপি পেষ্ট করবেন না।

আপনার ব্লগসাইট বা ওযেবসাইট সম্পর্কিত ৩টি পেজ তৈরি করতে হবে।পেজ গুলো হলো - প্রথমত: 'About page'- যেখানে আপনার নিজের সম্পর্কে বিস্তারিত লেখা থাকবে। দ্বিতীয়ত : 'Privacy policy page' - যেখানে আপনার সাইটির নীতিমালা সম্পর্কে লেখা থাকবে। তৃতীয়ত : 'Contact us page' - যেখানে আপনার কন্টাক্ট নম্বার সম্পর্কিত বিবরন থাকবে। এই তিনটি পেজ অবশ্যই থাকতে হবে।

আর যদি ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে চান, তাহলে একটি ইউটিউব চ্যানেল থাকতে হবে।প্রচুর শিক্ষনীয় বিষয় অর্থাৎ মানুষের উপকারে আসে এমন বিষয়ে ভিডিও তৈরি করে আপলোড করতে হবে।প্রচুর সাবস্ক্রাইবার এবং ভিউ থাকতে হবে। চ্যানেলটাকে ভেরিফাই করতে হবে এবং মনিটাইজেশন করতে হবে। তারপর চ্যানেলে গুগুল এডসেন্সের সাথে সংযোগ করতে হবে।

গুগুল টপে বা ফাস্ট পেজে আসার কৌশল জানতে ক্লিক করুন-

আর্টিকেলে কতটি শব্দ থাকতে হবে :

একটি আটিকেলে কতটি শব্দ থাকতে হবে তা নিয়ে মতভেদ আছে। আমার মতে ৫০০ শব্দ থাকতে হবে। অনেকে বলেছেন ১০০০ শব্দ থাকতে হবে। বড় কথা হচ্ছে আর্টিকেল ছোট বড় যেটাই হোক ইউনিক হতে হবে। যাতে মানুষের কাজে লাগে বা উপকারে আসে। তবে ব্লগসাইট বা ওয়েবসাইটে ৪/৫ টা আর্টিকেল ১০০০ থেকে ১৫০০ শব্দের হতে হবে। তবে এডসেন্স ্এপপ্রোভ করতে সহজ হবে।

কি কি বিষয় নিয়ে লেখা উচিত :

ব্লগ বা ওয়েবসাইটে লেখার জন্য নির্দিষ্ট কোন বিষয় নেই। আপনি যে কোন বিষয় নিয়ে লিখতে পারেন। যেমন: প্রযুক্তি সম্পর্কে, ইলেকট্রনিক ডিভাইস সম্পর্কে, হেলথ সম্পর্কে ইত্যাদি বিষয় নিয়ে লিখতে পারেন। সবচেয়ে বড় কথা হলো যেটা নিয়েই লিখেন না কেন, সব সময় মনে রাখবেন সেটা যেন কারো না করো উপকারে আসে।

মোট কতটি পোষ্ট থাকতে হবে :

এডসেন্স পেতে কতটি পোষ্ট থাকতে হবে।ইহার কোন নির্দিষ্ট সীমা নেই।কারো মতে ৪০টি, কারো মতে ৫০টি আবার করো মতে ৩০টির অধিক হলে।আমি ৩৫টি পোষ্ট লেখার পর এডসেন্স এপপ্রোভ হয়েছে।কথা হচ্ছে পোষ্ট যে কয়টায় হোক না কেন পোষ্ট বা আর্টিকেল গুলো যেন ইউনিক হয়। তবেই গুগুল এডসেন্স দ্রুত আপনার সাইটকে এপপ্রোভ করবে।


এডসেন্সের জন্য কিভাবে আবেদন করবেন :

প্রথমত এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে হলে উপরোক্ত নিয়ম গুলি সঠিক ভাবে পালন করতে হবে। তারপর গুগুল এডসেন্সে গিয়ে দেখুন উপরে ডান দিকে সাইন ইন বা সাইন আপ বাটনে ক্লিক করুন। তারপর ইমেইল এবং পাসওয়াড দিয়ে সাইন করুন।অথবা সরাসরি Get started বাটনে ক্লিক করে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের URL লিংক বসিয়ে দিন।আপনার নিজস্ব ইমেইল এডড্রেস দিন।দুই রেডিও বাটনের উপর বাটন সিলেক্ট করে Save and Continue চাপুন।আপনার কাজ শেষ। এখন মাঝে মাঝে ইমেইল চেক করুন।যদি সব ঠিক থাকে তো ইনশাল্লাহ পেয়ে যাবেন।আর যদি কোন ত্রুটি থেকে থাকে সেটাও আপনাকে ইমেইলে জেনে দিবে। সংশোধন করে ‍দিলেই এপপ্রোভ হয়ে যাবে। এপপ্রোভ হলে গুরুত্বের সাথে প্রতিটি বিষয় ভাল ভাবে বুঝে কাজ করতে থাকুন।


 ব্লগে এড ব্যবহার করবেন কিভাবে : 

এডসেন্স এপপ্রোভ হওয়ার পর এডসেন্স আপনাকে একটি কোড দিবে। কোডটি আপনার ব্লগে গিয়ে আপনার HTML কোডে হেডের মধ্যে বসিয়ে Save বাটনে ক্লিক করুন। তারপর ব্লগের লেআউটে ‍গিয়ে এড গেডজেট থেকে এডসেন্স সেটাপ করে দিন। এবার রিলোড দিন। ২৪ ঘন্টা পর আপনার সাইডে এড শো করবে।


ব্যাংক একাউন্ট যোগ করবেন কিভাবে :

গুগুল  এডসেন্স একাউন্টে যখন ১০০ ডলার হবে তখন গুগুল আপনাকে পেমেন্ট করার জন্য ব্যাংক ডিটেলস আ্যড করতে বলবে। তখন পেমেন্ট সেটিংস এ গিয়ে আপনার ব্যাংকের ইনফরমেশন গুলো পুরুন করে দিবেন।গুগুল পেমেন্ট দুই ভাবে দিয়ে থাকে- একটি হলো ব্যাংক একাউন্টে ট্রেনেসফার করে। আরকেটি হলো বাই পোষ্টে চিঠি পাঠিয়ে আপনাকে জানিয়ে দিবে।ব্যাংক ট্রেনেসফরটা সুবিধা জনক এবং দ্রুত টাকা পাওয়া যায়।আর বাই পোষ্টে টাকা পেতে সময় বেশী লাগে।যখন আপনার টাকা নির্দিষ্ট পরিমান হবে তখন গুগুল আপনাকে ইমেলে জানিয়ে দিবে।তারপর পিন ভেরিফেকেশন করে আপনাকে টাকা ‍দিবে।ব্যাংকে যোগাযোগ করে আপনার টাকা উইথড্রো করতে পারবেন।

গুগুল এডসেন্স পৃথিবীর মধ্যে সেরা পাবলির্সাস নেটওয়ার্ক সার্ভিস। এ সাইট পাওয়া মানে সোনার হরিণ পাওয়া।এ সাইটের নিরাপত্তা অনেক বেশী।তাই এ সাইটের নিয়ম কানুন মেনে যথাযথ ব্যবহার করা উচিত।

Post a Comment

0 Comments